মধুপুরের দোখলায় রেস্ট হাউস নির্মাণ কাজ শুরু হবে : কৃষি মন্ত্রী

মধুপুরের দোখলায় রেস্ট হাউস নির্মাণ কাজ শুরু হবে : কৃষি মন্ত্রী

টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর উপজেলার দোখলায় ১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে অচিরেই রেস্ট হাউস ও জাতির জনকের মুর‌্যাল তৈরী প্রকল্পের কাজ ‍শুরু হবে বলে জানিয়েছেন কৃষি মন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক, এমপি। গতকাল ২১ জুলাই রবিবার দোখলা ফরেস্ট রেস্ট হাউস প্রাঙ্গণে ‘স্থানীয় ও ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী জনগণের সহায়তায় মধুপুর জাতীয় উদ্যানের ইকো-ট্যুরিজম উন্নয়ন ও টেকসই ব্যবস্থাপনা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ তথ্য জানান।

মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী সি এফ ডব্লিউ (কমিউনিটি ফরেস্ট ওয়ার্কার)-দের জন্য ভাতার ব্যবস্থা করবেন বলেও আশ্বাস দেন।

কৃষিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘মধুপুর বন অতি পুরনো। এই বনের সাথে যাদের জীবন, সমাজ, সংস্কৃতি জড়িত তাদের এই বন রক্ষা করবো।’ এসময় তিনি আদিবাসী নেতাদের উল্লেখ করে বলেন, ‘উনারা এই বন নিয়ে, পরিবেশ নিয়ে জাতীয় পর্যায়ের সেমিনার গুলোতে অংশগ্রহণ করেন। কিন্তু এগুলো করে আমাদের অর্জন খুবই কম। বনও ধ্বংসের পথে, আদিবাসীদের সংস্কৃতিও বিলুপ্তির পথে। মাঝে মাঝে মনে হয় এত বড় নেতা হিসেবে আরো করণীয় ছিল। কিন্তু সেগুলো করতে পারি নাই। এই ব্যর্থতার দায় আমাকে বহন করতে হবে।’

টাঙ্গাইল বন বিভাগ আয়োজিত সভায় টাঙ্গাইল বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোহাম্মদ হারুন অর রশিদের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, মধুপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছরোয়ার আলম খান আবু, মধুপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাসলিমা আহমেদ পলি, জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদের সভাপতি ইউজিন নকরেক, মধুপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শরীফ আহম্মেদ নাসির, ৯ নং অরণখোলা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান বেনেডিক্ট মাংসাং প্রমুখ।

বক্তারা তাদের বক্তব্যে বন ধ্বংসের জন্য বন বিভাগের কর্মকতাদের দায়ী করেছেন।

Source:janajatirkantho.com

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য