টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল পর্বে বাংলাদেশের মেয়েরা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল পর্বে বাংলাদেশের মেয়েরা

দাপুটে পারফরম্যান্সে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল পর্ব নিশ্চিত করলো বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার বাছাই পর্বের ফাইনাল ওঠার সঙ্গে মূল আসরের টিকিটও নিশ্চিত হয়ে যায় সালমা খাতুনদের। ২০২০ সালে অস্ট্রেলিয়ায় হতে যাওয়া টুর্নামেন্টে নবম দেশ হিসেবে জায়গা পেলো বাংলাদেশ।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ফাইনালে উঠলেই মূল পর্ব নিশ্চিত, এমন সমীকরণের সামনে আয়ারল্যান্ড নারী দলের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ। স্কটল্যান্ডের ফর্টহিলের ম্যাচটি ৪ উইকেটে জিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মূল পর্ব নিশ্চিত করেছে সালমারা।

বোলিংয়ে আইরিশদের উড়িয়ে দিয়ে কাজটা সহজ করে নিয়েছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। ফাহিমা খাতুনের ঘূর্ণিতে নির্ধারিত ২০ ওভারে মাত্র ৮৫ রানে গুটিয়ে যায় আয়ারল্যান্ড। সহজ এই লক্ষ্য ৬ উইকেট হারিয়ে ৯ বল হাতে রেখে টপকে গেছে বাংলাদেশের মেয়েরা।

গ্রুপ পর্বের সব ম্যাচ জিতে সেমিফাইলে উঠেছিল বাংলাদেশ। এবার শেষ চারের বাধা পেরিয়ে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছে গেল তারা। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা আয়ারল্যান্ডের মেয়েদের শুরু থেকেই চেপে ধরে বাংলাদেশের বোলাররা। প্রথম সাফল্য আসে পেসার নাহিদা আক্তারের হাত ধরে। তার দেখানো পথে সাফল্য পান পেসার জাহানারা আলমও।

মাত্র ৬ রানে দুই ওপেনারকে হারানো আইরিশরা আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। বাংলাদেশি বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়েছে। সবচেয়ে বেশি পরীক্ষা দিতে হয়েছে তাদের ফাহিমা খাতুনের সামনে। ৪ ওভারে এই স্পিনার মাত্র ১৮ রান দিয়ে নিয়েছেন ৩ উইকেট। একটি করে উইকেট পেলেও খুবই মিতব্যয়ী ছিলেন জাহানারা, নাহিদা, সালমা ও রিতু মনি।

তাদের দুর্দান্ত বোলিংয়ের সামনে আয়ারল্যান্ডের মাত্র দুই ব্যাটার যেতে পেরেছেন দুই অঙ্কের ঘরে। অধিনায়ক লরা ডিল্যানির পর এইমেয়ার রিচার্ডসনও করেছেন ২৫ রান।

স্কোরে মাত্র ৮৫ রান জমা করেও বাংলাদেশকে সহজে জিততে দেয়নি আয়ারল্যান্ড। ৩০ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। মুর্শিদা খাতুন ১৩ রানে ‍আউট হওয়ার পরপরই ফিরে যান আরেক ওপেনার আয়েশা রহমান (৭) ও নিগার সুলতানা (১)। এরপর ফারজানা হক (২) ব্যর্থতার মিছিলে যোগ দিলে বিপদে পড়ে বাংলাদেশ।

কঠিন ওই পরিস্থিতিতে দলকে টেনে তোলেন সানজিদা ইসলাম। হার না মানা ৩২ রানের ইনিংস খেলে দলের ফাইনালের সঙ্গে বিশ্বকাপের মূল পর্ব নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন তিনি। ৩৭ বলের ইনিংসটি তিনি সাজান ৩ বাউন্ডারিতে। অবদান রেখেছেন রিতু মনি (১৫) ও জাহানারা আলম (৬*)।

২০১৮ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও বাছাই পর্ব খেলে যেতে হয়েছিল বাংলাদেশকে। সেবার বাছাইয়ের চ্যাম্পিয়ন হয়ে নেমেছিল তারা ওয়েস্ট ইন্ডিজের আসরে। এবারও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার হাতাছানি সালমাদের সামনে।

২০২০ মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলগুলো:

অস্ট্রেলিয়া (স্বাগতিক), ইংল্যান্ড, ভারত, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, বাংলাদেশ ও বাছাই পর্বের অন্য দল (থাইল্যান্ড অথবা পাপুয়া নিউগিনি)।

Source: Banglatribune.com

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য