বাংলাদেশের পর আফগানদের কাছেও হারলো জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশের পর আফগানদের কাছেও হারলো জিম্বাবুয়ে

ত্রিদেশীয় সিরিজে বাংলাদেশের পর নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানদের কাছেও হারলো টিম জিম্বাবুয়ে।

এদিকে রহমানউল্লাহ গুরবাজের ঝড়ো শুরুর পর নাজিবউল্লাহ জাদরান ও মোহাম্মদ নবীর বিস্ফোরক জুটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজে শুভ সূচনা হলো আফগানিস্তানের। শনিবার মিরপুরে জিম্বাবুয়েকে ২৮ রানে হারিয়েছে তারা। দারুণ এই জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে রবিবার একই মাঠে স্বাগতিক বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে রশিদ খানের দল।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৫ উইকেটে ১৯৭ রান করেছিল আফগানিস্তান। জবাব দিতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছিল জিম্বাবুয়ে। যদিও শেষ দিকে লড়াই করে তারা। অলআউট হওয়ার শঙ্কা উড়িয়ে ৭ উইকেটে ১৬৯ রানে থামে জিম্বাবুয়ানরা।

বড় লক্ষ্যে নেমে যেমনটা শুরুর দরকার, তেমনই করেছিল জিম্বাবুয়ে। কিন্তু ২৫ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙতে বিপদে পড়ে তারা। তৃতীয় ওভারের পঞ্চম বলে রান আউট হন অধিনায়ক হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। ১৬ বলে ৩ চার ও ২ ছয়ে ব্রেন্ডন টেলরের ২৭ রানের ঝড় থামে পরের ওভারে। ফরিদ আহমেদ দুই বল পরই শূন্য রানে ফেরান শন উইলিয়ামসকে।

দলীয় ৪৪ রানে ক্রেইগ আরভিন (১০) চতুর্থ ব্যাটসম্যান হিসেবে সাজঘরে ফিরে গেলে টিনোটেন্ডা মুতম্বজির সঙ্গে রায়ান বার্লের জুটি কিছুটা প্রতিরোধ গড়েছিল। ৩৭ রানের এই জুটি ভেঙে দেন রশিদ খান। মুতম্বজিকে (২০) ফেরানোর পর পরের ওভারে বার্লকে (২৫) বোল্ড করেন আফগান অধিনায়ক।

৯৬ রানে ৬ উইকেট হারানো জিম্বাবুয়ে শেষ পর্যন্ত লড়াই করেছে রেগিস চাকাভা ও নেভিল মাদজিভার ব্যাটে। ৪৫ রানের সর্বোচ্চ জুটি গড়ে মাদজিভা (১৫) বিদায় নিলে চাকাভা ও কাইল জার্ভিস হারের ব্যবধান কমাতে থাকেন। ২৮ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ার পথে ২২ বল খেলে ৪২ রানে অপরাজিত ছিলেন চাকাভা, ১৫ রানে খেলছিলেন জার্ভিস।

আফগানিস্তানের পক্ষে রশিদ ও ফরিদ সর্বোচ্চ দুটি করে উইকেট নেন। ম্যাচসেরা হয়েছেন নাজিব, ৩০ বলে ৫ চার ও ৬ ছয়ে ৬৯ রানে অপরাজিত ছিলেন আফগান ব্যাটসম্যান।

এর আগে কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে মিরপুরে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ১৫টি ছয়ের রেকর্ড গড়ে আফগানিস্তান। ১৪টি ছয়ে আগের রেকর্ডটি ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের, ২০১২ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে একমাত্র ম্যাচে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য