যৌন নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় আদিবাসীপল্লীতে হামলা

যৌন নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় আদিবাসীপল্লীতে হামলা

নওগাঁর মান্দায় যৌন নির্যাতনের প্রতিবাদ করায় আদিবাসীপল্লীতে হামলা চালিয়েছে একদল বখাটে। এ সময় বখাটেদের মারপিটে ওই পল্লীর চার নারীসহ সাতজন আহত হয়েছেন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বেলা ১০টার দিকে উপজেলার ভারশোঁ ইউনিয়নের কালীসফা পশ্চিমপাড়া আদিবাসীপল্লীতে হামলার এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনায় ৪ বখাটে যুবককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয়রা। এরা হলো কালীসফা মোল্লাপাড়া গ্রামের সাইফুদ্দীনের ছেলে হাবিবুর রহমান (১৯), আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে ইউসুফ আলী (১৮), রকিব হোসেনের ছেলে সুজন ইসলাম (১৮) ও দেলুয়াবাড়ি মোল্লাপাড়া গ্রামের কামরুজ্জামানের ছেলে জিহাদ হোসেন (১৮)।

আদিবাসীপল্লীর বাসিন্দারা জানান, কালীসফা দীঘিপাড়ার মোড়ে ‘ডালপূজা’ দেখে বুধবার সন্ধ্যায় বৃষ্টির মধ্যে বাড়ি ফিরছিলেন ওই পল্লীর ৩ কিশোরী। পথিমধ্যে দেলুয়াবাড়ি এলাকার মৃত মজির উদ্দিনের ছেলে নাজমুল হোসেন এক কিশোরী জাপটে ধরে শ্লীলতাহানি করে। এ সময় তাদের চিৎকারে বখাটে নাজমুল পালিয়ে কালীসফা মন্দিরসংলগ্ন এলাকায় খোকনের দোকানে আশ্রয় নেয়।

পল্লীর বাসিন্দা সুমতি রানী ওরাও জানান, ওই দোকান থেকে নাজমুলকে ধরে আমাদের পাড়াতে এনে আটক করে রাখা হয়। সন্ধ্যার পরে পল্লীর মোড়ল উজ্জল সরদার এসে নাজমুলকে ছেড়ে দেন। তিনি আরো বলেন, ঘটনার জের ধরে বৃহস্পতিবার বেলা ১০টার দিকে নাজমুলের নেতৃত্বে ৭-৮ জন যুবক পল্লীতে এসে হামলা চালিয়ে অতর্কিত মারপিট শুরু করে।

পল্লীর মোড়ল উজ্জল সরদার জানান, বখাটেদের মারপিটে সাগর ওরাও (১৮), শান্ত ওরাও (১৫), আনন্দ ওরাও (২৫), সোনালী ওরাও (৩৫), মিনু ওরাও (৪৫), দুলি ওরাও (২৫) ও জোসনা ওরাও (৪৫) আহত হয়েছেন। তাদের মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আদিবাসীপল্লীতে হামলার সঙ্গে জড়িত বখাটেদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান তিনি।

মান্দা থানার ওসি মোজাফফর হোসেন জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। পরে স্থানীয়দের হাতে আটক ৪ যুবককে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য