পুরোনো সব ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ

পুরোনো সব ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ

হোয়াটসঅ্যাপ লাখো পুরোনো আইফোন ও অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীর জন্য বন্ধ হয়ে গেল হোয়াটসঅ্যাপ সেবা। গতকাল শনিবার থেকে অ্যান্ড্রয়েড ৪.০.৩ সংস্করণের আগের সংস্করণগুলোতে এবং আইওএস ৯ এর আগের সংস্করণে আর হোয়াটসঅ্যাপ সমর্থন করছে না। ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ এক ব্লগ পোস্টে এ তথ্য জানিয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, অ্যান্ড্রয়েড ৪.০.৩–এর পরের সংস্করণ, আইওএস ৯ এবং কাইওএস ২.৫.১ এর পরের সংস্করণগুলোতে হোয়াটসঅ্যাপের হালনাগাদ সংস্করণ পাওয়া যাবে। হোয়াটসঅ্যাপ আর পুরোনো সংস্করণের জন্য অপারেটিং সিস্টেমের উন্নয়ন করবে না বলে পুরোনো ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ চালু থাকলেও অনেক ফাংশন ঠিকমতো কাজ করবে না। এ ছাড়া পুরোনো সংস্করণের স্মার্টফোনের জন্য কোনো নিরাপত্তা প্রোগ্রাম ছাড়া হবে না। এতে হ্যাকাররা সহজেই হোয়াটসঅ্যাপে আক্রমণ চালাতে পারবে।

সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞরা নিয়মিত হালনাগাদ অ্যাপ ব্যবহারের পরামর্শ দেন।

যাঁদের পুরোনো অ্যান্ড্রয়েড ফোন বা ২.৩.৭ বা তার আগের সংস্করণে চলা কোনো ফোন এবং আইফোন ৮ এর আগের কোনো সংস্করণ হয় তবে হোয়াটসঅ্যাপ স্বাভাবিকভাবে চালু থাকবে। তবে এতে নতুন কোনো অ্যাকাউন্ট খোলা বা অ্যাকাউন্ট যাচাই করার সুযোগ থাকবে না। এ ছাড়া পরে হোয়াটসঅ্যাপ চালাতে নানা সমস্যা দেখা দেবে।

অ্যাপল কর্তৃপক্ষ বলেছে, মাত্র ৭ শতাংশ আইফোন ব্যবহারকারী আইওএস ১২ বা তার চেয়ে পুরোনো সংস্করণ ব্যবহার করেন। তবে ঠিক কত ব্যবহারকারী পুরোনো আইফোন ব্যবহার করছেন, তা জানায়নি মার্কিন প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি।

গত ২৩ জানুয়ারি জাতিসংঘের দুজন বিশেষজ্ঞ মার্কিন ধনকুবের আমাজনের প্রধান নির্বাহী বেজোসের হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়ার বিষয়টি তদন্তের আহ্বানের পরপরই হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ পুরোনো ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ২০১৮ সালে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ব্যক্তিগত হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট থেকে ম্যালওয়্যারযুক্ত ভিডিও জেফ বেজোসের আইফোনে পাঠানোর অভিযোগ উঠেছে।

উল্লেখ্য, গত বছরেই হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ ২০২০ সাল থেকে বিভিন্ন ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছিল। প্রতিষ্ঠানটির এক ব্লগ পোস্টে বলা হয়, ৩১ ডিসেম্বরের পর বিশ্বের সব উইন্ডোজ ফোনে বন্ধ হয়ে যাবে হোয়াটসঅ্যাপ।

আইওএস ৮ অথবা পুরোনো অপারেটিং সিস্টেমের আইফোনে ২০২০ সালের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে হোয়াটসঅ্যাপের ব্যবহার বন্ধ হওয়ার কথা। এ ছাড়া অ্যান্ড্রয়েড ২.৩.৭ অথবা তার চেয়ে পুরোনো সংস্করণের ফোনে চলবে না হোয়াটসঅ্যাপ।

২০১৪ সালে ১৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করে হোয়াটসঅ্যাপকে কিনেছিল ফেসবুক। বর্তমানে ইনস্টাগ্রাম, মেসেঞ্জার ও হোয়াটসঅ্যাপকে এক জায়গায় আনার চেষ্টা চালাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

গুরুত্বপূর্ণ যেসব ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ চালানো যাবে না এর মধ্যে রয়েছে আইফোন ৫-এর নিচের সব সংস্করণ, সব মাইক্রোসফট লুমিয়া স্মার্টফোন, এইচপি এলিট স্মার্টফোন, ২০১০ সালের আগে বাজারে আসা সব ধরনের অ্যান্ড্রয়েড ফোন। অ্যান্ড্রয়েড ফোনের মধ্যে রয়েছে গুগল নেক্সাস ওয়ান, স্যামসাং এপিক ফোরজি, মটোরোলা ড্রয়েড এক্স প্রভৃতি।

বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হচ্ছে, হোয়াটসঅ্যাপ চালাতে প্রয়োজন হলে অপারেটিং সিস্টেম হালনাগাদ করে নিতে হবে, অন্যথায় হোয়াটসঅ্যাপের বিকল্প অ্যাপগুলো ব্যবহার করা শুরু করতে হবে। অনেক পুরোনো অ্যাপ আছে যা যোগাযোগের ক্ষেত্রে হোয়াটসঅ্যাপের বিকল্প হিসেবে পুরোনো ফোন সমর্থন করবে। কিন্তু হোয়াটসঅ্যাপ অতি জরুরি হলে নতুন সিস্টেমের দিকে যাওয়ার বিকল্প নেই।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য