বাঙালি মেয়েদেরকে বাঙালি সংস্কৃতিতে ফিরে আসতে হবে: মেনন

বাঙালি মেয়েদেরকে বাঙালি  সংস্কৃতিতে ফিরে আসতে হবে: মেনন

আজ বিকাল ৩টায় মতিঝিল আরামবাগ স্কুল এন্ড কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও ঢাকা-৮ আসনের সংসদ সদস্য জননেতা কমরেড রাশেদ খান মেনন বলেন, আজকে প্রাথমিক এবং মাধ্যমিক ক্ষেত্রে ছেলেদের চেয়ে মেয়েদের শিক্ষার হার বেশি। তারাই বেশি লেখাপড়া করছে। কিন্তু সংস্কৃতির দিক থেকে তারা পিছিয়ে যাচ্ছে। আজকাল কোনো সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বিয়ের অনুষ্ঠান এবং বিশ^বিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে বাঙালি ললনাদের দেখা যায় না। দেখা যায় সৌদি অথবা দুবাই ফেরত মহিলাদের। তারা মাথায় ছোট করে হিজাব পরে। এটা কোনো ধর্মীয় অনুশাসন নয়, অথবা ধর্মীয় ব্যাপার নয়। এগুলো অনুকরণ ও অপসংস্কৃতি।
তিনি বলেন, বেগম রোকেয়া যেখানে দেড়শ বছর আগে পর্দা প্রথার বিরুদ্ধে মেয়েদের বের হয়ে আসার শিক্ষা দিয়েছিলেন, সেখানে বাংলাদেশে আজকে এই ধরনের প্রশ্ন তোলা হচ্ছে এবং সংস্কৃতি গ্রহণ করা হচ্ছে তা কখনই মঙ্গলজনক নয়। আজকে বাঙালি মেয়েদেরকে বাঙালি সংস্কৃতিতে ফিরে আসতে হবে। আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি শাড়ী পরে মাথায় কাপড় দিয়ে, মতিয়া চৌধুরী অথবা রওশন আরা মান্নান এমপি মাথায় কাপড় দিয়ে তাদের পর্দা রক্ষা হয়, তাহলে কেন আজকে স্কুল-কলেজের মেয়েরা এ ধরনের পোশাক পড়বে? তাই আমাদের সমঅধিকার প্রতিষ্ঠার উত্তরণে নতুন প্রজন্মকে বাঙালি ঐতিহ্য ও বাঙালি সংস্কৃতি অনুসরণ করতে হবে।
সভায় সভাপতিত্ব করেন সাবেক এমপি ও স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি আব্দুর রহিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা সংরক্ষিত আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এবং এই প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ রওশন আরা মান্নান এমপি, সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত কাউন্সিলর মোজাম্মেল হক, সংরক্ষিত আসনের নবনির্বাচিত কাউন্সিলর মিনা রহমান। তারা সকলেই এই স্কুল এন্ড কলেজটিকে জাতীয়করণের দাবি জানান। তারা আশা করেন সরকার জাতীয়করণের ক্ষেত্রে এই স্কুলটিকে অগ্রাধিকার দিবেন। এই অঞ্চলটি অনেক পিছিয়ে ছিল সেখানে এই স্কুলই অঞ্চলের ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়া শিখিয়ে এগিয়ে নিয়ে গেছে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য