সাভারে ছেলেবন্ধুকে আটকে রেখে আদিবাসী কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণ

সাভারে ছেলেবন্ধুকে আটকে রেখে আদিবাসী কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণ

ঢাকার সাভারে বন্ধুকে পাশের ঘরে আটকে রেখে এক আদিবাসী কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণ করেছে কয়েকজন যুবক।
গত বুধবার রাতে সাভারের পূর্ব রাজাশন এলাকায় আকরাম খাঁনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর ধর্ষণকারীরা গা ঢাকা দিয়েছে।

ধর্ষণের শিকার ওই আদিবাসী ছাত্রী সাভারের একটি হোস্টেলে থাকতেন।

এলাকাবাসী জানায়, বুধবার সন্ধ্যায় পূর্ব রাজাশন এলাকায় একটি রাস্তায় তার এক ছেলেবন্ধুর সঙ্গে ঘুরতে যায় ওই ছাত্রী। এসময় ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা নজরুল ও তার গাড়িচালক জুয়েল তাদেরকে ফুসলিয়ে স্থানীয় আকরাম খানের বাড়িতে নিয়ে যায়।

সেখানে বন্ধুকে একটি কক্ষে মারধর করে আটকে রেখে নজরুল ও জুয়েলসহ কয়েকজন যুবক ওই আদিবাসী কলেজছাত্রীকে গণধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী ওই কলেজছাত্রীর চিৎকারে এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে।

এদিকে মীমাংসার চাপ ও ভয়ভীতির দেখানোর জন্য ওই ছাত্রী থানায় অভিযোগ দিতে পারছে না বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে।

ওই ছাত্রী যে হোস্টেলে থাকতেন তার সুপার জানান, বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংসা না করলে আমাদের ওপর হামলার আশংকা রয়েছে। বিষয়টি আমরা মীমাংসা করার চেষ্টা করছি।

বাড়ির মালিক আকরাম খান জানান, বিষয়টি সাভার পৌর সভার ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সেলিম মিয়ার বাবা বিল্লাল হোসেন মীমাংসা করার উদ্যোগ নিয়েছেন।

সেলিম মিয়ার বাবা বিল্লাল এ বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার ওসি এস এম কামরুজ্জামান যুগান্তরকে বলেন, ধর্ষণের বিষয়টি তার জানা নেই। তবুও অভিযোগ পেলে তিনি বিষয়টি তদন্ত করে দেখবেন।
তথ্যসূত্রঃ যুগান্তর

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য