বান্দরবান প্রেসক্লাব চত্বরে জেএসএস এর বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত

বান্দরবান প্রেসক্লাব চত্বরে জেএসএস এর  বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত

২৭-০৪-২০১৬ইং রোজ বূধবার সকাল ১১.০০ঘটিকার সময় বান্দরবান প্রেসক্লাব চত্বরে বিগত ২৩এপ্রিল বান্দরবান জেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রশাসনের যোগসাজশে জাল/অবৈধ ব্যালট পেপারের মাধ্যমে আওয়ামী লীগের ব্যাপক ভোট ডাকাতি এবং লামার গজালিয়া ইউনিয়নে জেএসএস ও পিসিপি সদস্যদের উপর আওয়ামী লীগের বর্বর হামলার প্রতিবাদে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি বান্দরবান জেলা শাখার উদ্যোগে এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি বান্দরবান জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও রোয়াংছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উঃ ক্যবামং মারমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক উঃ জলিমং মারমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা সমিতি বান্দরবান জেলা কমিটির সভানেত্রী ও বান্দরবান সদর উপজেলার মহিলা-ভাইস চেয়ারম্যান শ্রীমতি ওয়াইচিং প্রু মারমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি বান্দরবান জেলা কমিটির তথ্য ও প্রচার সম্পাদক শ্রী নিত্য লাল চাকমা, যুব সমিতি বান্দরবান জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক মংএসিং মারমা জিকো, পাহাড়ী ছাত্র পরিষদের বান্দরবান জেলা শাখার সভাপতি ছাত্রনেতা উবাচিং মারমা প্রমূখ।
প্রধান অতিথি উঃ জলিমং মারমা বলেন, বিগত ২৩ এপ্রিল ২০১৬ তারিখে অনুষ্ঠিত বান্দরবান জেলাধীন ২৫টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ২১টি ইউনিয়নে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ পূর্ব-পরিকল্পনা অনুসারে শত শত নকল/জাল ব্যালট পেপার ছাপিয়ে নির্বাচনের একদিন আগে তাদের কর্মী ও সমর্থকদের সরবরাহ করে এবং প্রশাসন ও নির্বাচনে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের যোগসাজসে এসব নকল/জাল ব্যালট পেপার দিয়ে আওয়ামীলীগের প্রার্থীদের পক্ষে ব্যাপক জাল ভোট প্রদান করে। ভোট গণনার সময় অধিকাংশ কেন্দ্রে এধরনের নকল ব্যালট পেপার চোখে পড়ে। এসব নকল/জাল ব্যালট পেপার চিহ্নিত ও বাতিল পূর্বক পুন:গণনার জন্য জনসংহতি সমিতির সমর্থিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান ও সদস্যবৃন্দ কর্তৃক তাৎক্ষণিকভাবে মৌখিক ও লিখিতভাবে আপত্তি জানানো হলেও সংশ্লিষ্ট প্রিসাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসাররা তাদের আপত্তি ও আবেদন কোনরূপ আমলে নেননি। এসব নকল/জাল ব্যালট পেপারগুলো বৈধ হিসেবে বিবেচনা করে একতরফা ও অবৈধভাবে আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের জয়ী ঘোষণা করা হয়। এ নির্বাচন অবৈধ ও প্রহসনমূলক। অবিলম্বে এ নির্বাচন অবৈধ ঘোষণা করে পুন:নির্বাচনের দাবী জানায়।
বিশেষ অতিথি ওয়াইচিং প্রু মারমা বলেন, অভিনব কায়দায় জাল ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোট কারচুপি করে ভোটাধিকারের মতো নাগরিকদের সাংবিধানিক অধিকারকে ভূলুন্ঠিত করে আওয়ামী-লীগের প্রার্র্থীদেরকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার জোরে অবৈধভাবে জয়ী ঘোষণা করা হয়েছে। প্রতিটি ইউনিয়নে প্রত্যেক কেন্দ্রে অবৈধ ব্যালট পেপার ছিল। অন্যদিকে বান্দরবান জেলাধীন লামা উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের লেলিয়ে দেয়া ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা জনসংহতি সমিতি ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সদস্য এবং গজালিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী চচিংমং মারমার পোলিং এজেন্টের উপর নগ্নভাবে অতর্কিত হামলা করে। এতে জনসংহতি সমিতির একজন ও পিসিপির দুইজনসহ মোট তিনজন সদস্য গুরুতরভাবে আহত হয়। অবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতারের জন্য জোর দাবী জানায়।
সভাপতির বক্তব্যে শ্রী ক্যবামং মারমা বলেন, আওয়ামী লীগ ভোট চোর, ভোট ডাকাত। তারা ভোট চুরি করে ও ভোট ডাকাতি করে জনগণকে ধোঁকা দিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, যদি সুষ্ঠু নির্বাচন হয় তাহলে আওয়ামী লীগ একটি আসনেও জয়যুক্ত হতে পারবেনা। অবৈধ ব্যালট পেপার দিয়ে, ক্ষমতার জোরে, প্রশাসনের যোগসাজশে জোর করে আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের জয়ী ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি অবিলম্বে পুন: নির্বাচনের দাবী জানান এবং ভোট চোর ও ভোট ডাকাতদের সবখানে প্রতিরোধ করার ঘোষণা দেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য