তানোরে আদিবাসী গৃহবধুকে ধর্ষণ, ১৫০০ টাকায় মীমাংসা

তানোরে আদিবাসী গৃহবধুকে ধর্ষণ, ১৫০০ টাকায় মীমাংসা

গত বৃহস্পতিবার রাজশাহীর তানোর উপজেলার কলমা ইউপি এলাকায় অমৃতপুর আদিবাসী পল্লীতে স্বামী পরিত্যাক্তা এক আদিবাসী গৃহবধু ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে জানা গেছে। ওই গৃহবধুর ঘরে আপত্তিকর অবস্থায় আদিবাসী পল্লীর লোকজন আটক করে ধর্ষককে।
ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ওই পল্লীর খ্রিষ্টান মিশনের শিক্ষক জামিন ১৫০০ টাকা জমা করে আপোষ মিমাংসা করে দিয়েছেন। এ খবর ধীরে ধীরে প্রকাশ পেলে, ওই এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ওই আদিবাসী নারী দীর্ঘদিন থেকে স্বামী পরিত্যাক্তা হয়ে কাজকাম করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। এমনকি কলমা ইউপি’র আজিজপুর গ্রামের আয়েশ মেম্বারের পুত্র রাজশাহী কোর্টের মুহুরী শামসুলের বাড়ীতে বিভিন্ন ধরণের কাজ করে আসছিল।
এ অবস্থায় ওই আদিবাসী নারীর ঘরে ঢুকে ধর্ষণ করে। এ সময় অন্যরা দেখে ফেলে তাকে মারপিট করে আটক করে রাখে। পরে আদিবাসী সংস্থা ও খ্রিষ্টান মিশনের শিক্ষক জামিনের মধ্যাস্ততায় ১৫০০ টাকা জরিমানা করে আপোষ মিমাংসা করা হয়।
মিশনের শিক্ষক জামিন জানান, বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১২ টার দিকে গ্রামবাসী ওই মেয়ের ঘরে হাতে-নাতে আটক কওে তাকে। পরে জানতে পেরে মেয়ে নিজেই জানায় আমি তাকে ডেকেছি এবং মেয়ের কথার পরিপ্রেক্ষিতে ১৫০০ টাকায় আপোষ করা হয়েছে। এতে সমস্যা কোথায়। অভিযুক্ত কোর্টের মুহুরী শামসুল দম্ভক্তি করে জানান ঘটনা যে ঘটুক ফোন দিবেন না বলে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন এবং এটাও বলেন, আমি কোর্টের মুহুরী। বাড়াবাড়ি করলে সমস্যা আছে।
এ ব্যাপারে ওসি আব্দুর রাজ্জাক জানান, এ ঘটনা আমাদের জানা নেই। এমনকি কেউ অভিযোগও করেনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে ধর্ষণের ঘটনা আপোষ মিমাংসার অযোগ্য।
সুত্রঃ সংবাদ প্রতিক্ষন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য