পোপ ফ্রান্সিসকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান

পোপ ফ্রান্সিসকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান

কানাডায় ক্যাথলিক চার্চ পরিচালিত স্কুলগুলোতে আদিবাসী শিশুদের ওপর নির্যাতনের ঘটনায় পোপ ফ্রান্সিসকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। জি-৭ সম্মেলন পরবর্তী সফরের অংশ হিসেবে সোমবার ভ্যাটিকান সফরে যান কানাডার প্রধানমন্ত্রী। এ সময় পোপ ফ্রান্সিস-এর সঙ্গে আলাপকালে তিনি তাকে ক্ষমা চাওয়ার এ আহ্বান জানান। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি।
কানাডার আদিবাসীদের প্রায় দেড় লাখ শিশুকে ১৮৮০ সালের দিকে সরকার পরিচালিত আবাসিক স্কুলে নিয়ে যায় দেশটির কর্তপক্ষ। উদ্দেশ্য ছিল তাদের কানাডার মূল সমাজের সঙ্গে যেন খাপ খাইয়ে নেওয়া যায়। এ লক্ষ্যে এসব শিশুদের নিজস্ব সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও ভাষা থেকে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন করে ফেলা হয়। এক শতকেরও বেশি সময় কানাডা সরকার এসব স্কুলে অর্থায়ন করে। তবে সরকারি অর্থে পরিচালিত হলেও এগুলো পরিচালনা করতো ক্যাথলিক গির্জা। ১৯৯৬ সালে এ ধরনের সর্বশেষ স্কুলটি বন্ধ হয়ে যায়।
ক্যাথলিক চার্চ পরিচালিত এসব স্কুলের অনেক শিক্ষার্থীই শারীরিক ও যৌন নির্যাতনের শিকার হতো বলে অভিযোগ রয়েছে। ২০১৫ সালে কানাডার ‘ট্রুথ অ্যান্ড রিকনসিলেশন কমিশন’এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এতে বলা হয়, আদিবাসী শিশুদের তাদের মা-বাবা ও সংস্কৃতি থেকে বিচ্ছিন্ন করে সাংস্কৃতিক গণহত্যা চালানো হয়েছিল। কমিশন পোপের আনুষ্ঠানিক ক্ষমা প্রার্থনার দাবিসহ কর্তৃপক্ষের কাছে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য বেশকিছু সুপারিশ পেশ করে।
সোমবার পোপের সঙ্গে বৈঠকে আদিবাসী শিশুদের ওপর ওই নিপীড়নের বিষয়টি তুলে ধরেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। পরে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, আদিবাসীদের প্রকৃত সমন্বয়ের মাধ্যমে কানাডার সামনে এগিয়ে যাওয়াটা কতটা গুরুত্বপূর্ণ আমি পোপকে সে বিষয়ে বলেছি। ক্ষমা চাওয়ার মাধ্যমে তিনি কিভাবে সহযোগিতা করতে পারবেন সে বিষয়ে আলাপ করেছি।
আদিবাসীদের কাছে ক্ষমা চাইতে পোপ ফ্রান্সিসকে কানাডা সফরের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বলেও সাংবাদিকদের জানান দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। এ ব্যাপারে এখনও পর্যন্ত ভ্যাটিকান থেকে কোনও মন্তব্য আসেনি।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য