সীতাকুণ্ডের ৬ স্বাস্থ্যকর্মীকে ‘শাস্তিমূলক’ বদলি

সীতাকুণ্ডের ৬ স্বাস্থ্যকর্মীকে ‘শাস্তিমূলক’ বদলি

সীতাকুণ্ডে পাহাড়ি গ্রাম ত্রিপুরাদের পাড়ায় শিশুদের টিকাদানে গাফিলতির অভিযোগে মাঠ পর্যায়ের ছয় স্বাস্থ্যকর্মীকে ‘শাস্তিমূলক’ বদলি করা হয়েছে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের নির্দেশে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী মঙ্গলবার বদলির এই আদেশ দেন।

সিভিল সার্জন গণমাধ্যমকে বলেন, “ত্রিপুরা পাড়ায় নয় শিশুর মৃত্যুর পর গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনে দেখা যায়, ওই এলাকা টিকার আওতায় আসেনি। তদন্তে স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মীদের গাফিলতিরও প্রমাণ পাওয়া যায়।”

এ কারণে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ডিজির নির্দেশে ছয়জনকে ‘শাস্তিমূলক বদলি’ হিসেবে সন্দ্বীপের বিভিন্ন এলাকায় পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

গত মাসের শেষ দিক থেকে বার আউলিয়ার সোনাইছড়ি ত্রিপুরা পাড়ার শিশুদের মধ্যে জ্বর, ফুসকুড়ি, শ্বাসকষ্ট ও খিঁচুনির মত উপসর্গ দেখা দেওয়া শুরু করে। কিন্তু অভিভাবকরা হাসপাতালে না যাওয়ায় চট্টগ্রামের স্থানীয় প্রশাসন বিষয়টি জানতে পারে গত ১২ জুলাই; নয় শিশুর মৃত্যুর পর।

পরে চট্টগ্রাম থেকে চিকিৎসকরা গিয়ে অসুস্থ আরও অর্ধশতাধিক শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করেন।প্রাথমিকভাবে তাদের অসুস্থতার কারণ শনাক্ত করতে না পারায় ঢাকা থেকে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) বিশেষজ্ঞরা চট্টগ্রামে এসে অসুস্থ শিশুদের দেখেন এবং নমুন সংগ্রহ করেন।

প্রাথমিক অনুসন্ধানের পর আইইডিসিআরের বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছিলেন, ওই পাড়ার শিশুরা দীর্ঘদিন ধরে অপুষ্টিতে ভুগছে।

আর মৃত ও অসুস্থদের রক্ত ও অন্যান্য নমুনা পরীক্ষার পর সোমবার চিকিৎসকদের দেওয়া প্রতিবেদনে বলা হয়, ত্রিপুরা পাড়ায় নয় শিশুর মৃত্যু হয়েছে হামের কারণে।

সরকার সারা দেশে নিয়মিত টিকাদান কর্মসূচি চালালেও ত্রিপুরা পাড়ায় পাহাড়িদের ওই গোত্রের ৮৫টি পরিবার কখনোই টিকার আওতায় আসেনি বলে সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য