এফ দীপঙ্কর ভান্তের লেলিয়ে দেয়া শিষ্য কর্তৃক এক নিরীহ গ্রামবাসীকে মারধর

গত ১ এপ্রিল ২০১৮ সকাল ৬:৩০ ঘটিকায় এফ দীপঙ্কর মহাথেরোর অনুসারী ৭ জন ভিক্ষু ও শ্রমণের নেতৃত্বে একদল শিষ্য কর্তৃক রাঙ্গামাটি জেলার বিলাইছড়ি উপজেলায় ফারুয়া ইউনিয়নের গোয়াইনছড়ি গ্রামের চিতাখোলা স্থানে প্রিয় কান্তি চাকমার ছেলে চিরঞ্জীব চাকমা (১৭) নামে গোয়াইনছড়ি গ্রামের অধিবাসীকে মারধর করে। শিষ্যদের মধ্যে সাধন কুমার তঞ্চঙ্গ্যা (৩৮), পিতা গরাইয়া তঞ্চঙ্গ্যা, গ্রাম গোয়াইনছড়ি; অজয় রায় তঞ্চঙ্গ্যা (২৮), পিতা দীপচাঁন তঞ্চঙ্গ্যা, গ্রাম গোয়াইনছড়ি; এবং স্বপন চাকমা (১৭), পিতা গুরিমরত্ত চাকমাসহ ১০/১২ ব্যক্তি কর্তৃক লাঠিসোটা দিয়ে চিরঞ্জীব চাকমার পিঠে ও মাথায় আঘাত করে। চিরঞ্জীব চাকমাকে মাটিতে ফেলে তার পেটে জোরে লাথি মারে। এতে চিরঞ্জীব তঞ্চঙ্গ্যার পিঠে, মাথা ও কোমরে মারাত্মকভাবে জখম হয়। জানা যায় যে, হামলার সময় হামলাকারীদের হাতে ৭/৮টি দেশীয় তৈরি গাদা বন্দুক ছিল। বন্দুক তাক করে চিরঞ্জীব চাকমাকে গুলি করারও হুমকি প্রদান করে হামলাকারীরা।

জানা যায় যে, হামলার শিকার চিরঞ্জীব চাকমা গোল্ডমার্ট বিস্কুট কোম্পানীর এজেন্ট হিসেবে কাজ করছেন। তিনি এলাকার বিভিন্ন দোকানে বিস্কুট বিক্রি করেন। সেদিন তিনি বিক্রিত বিস্কুটের টাকা উত্তলন করতে যাচ্ছিলেন। তাকে পথে একা পেয়ে এফ দীপঙ্কর মহাথেরোর শিষ্যরা হামলা করে। হামলার পর রশি দিয়ে বেঁধে স্থানীয় ফারুয়া ক্যাম্পের সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করে। সেনা সদস্যরা ধরে নিতে দেখে চিরঞ্জীবের মাতা তায়মালা চাকমা কাঁদতে কাঁদতে ভয়ে মুর্ছা যান। সেনা ক্যাম্প থেকে চিকিৎসার জন্য বেদনা নাশক মলম ও কিছু টেবলেট দেয়। কোন অভিযোগ না পেয়ে দুপুরের দিকে সেনা সদস্যরা তাকে ছেড়ে দেয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য