‘ঢাকা ঘোষণা’র মাধ্যমে শেষ হল ৪র্থ জাতীয় আদিবাসী নারী সন্মেলন

‘ঢাকা ঘোষণা’র মাধ্যমে শেষ হল ৪র্থ জাতীয় আদিবাসী নারী সন্মেলন

আদিবাসী নারীদের অধিকার অর্জনে বিভিন্ন কর্মপরিকল্পনা ও সুপারিশসহ ‘ঢাকা ঘোষণা’র মাধ্যমে শেষ হলো আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের দুদিনব্যাপী ৪র্থ জাতীয় আদিবাসী নারী সন্মেলন। সন্মেলনে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল ও সংগঠন থেকে আদিবাসী নারী নেতা কর্মীরা অংশগ্রহন করেছেন।

সন্মেলনের ২য় দিনে আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক তাদের আগামী কর্মপরিকল্পনা ঘোষণা করেন। যেখানে আদিবাসী নারীদের উপর চলমান পারিবারিক, সামাজিক, সাম্প্রদায়িক ও রাষ্ট্রীয় বৈষম্য, বঞ্চনা ও নিপীড়নের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ সংগ্রাম পরিচালনা, দেশের বিভিন্ন আন্দোলনরত নারী সংগঠন, কর্মী সংগঠকদের সাথে ঐক্য ও সংহতি জোরদার করা, সমাজ ও রাষ্ট্রের সকল ক্ষেত্রে আদিবাসী নারীর অংশগ্রহন ও প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা, সমতাভিত্তিক আদিবাসী সমাজ গঠনে সংগ্রাম, একটি গণতান্ত্রিক অসাম্প্রদায়িক ও প্রগতিশীল রাষ্ট্র ও সমাজ প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করাসহ নানান কর্মসূচি গ্রহন করা হয়।

এছাড়া সন্মেলনে উপস্থিত সকল নারীদের সন্মতিতে সরকারের কাছে বিভিন্ন সুপারিশও করা হয়। যার মধ্যে জাতীয় ও স্থানীয় সরকার পরিষদগুলোতে আদিবাসী নারীর জন্য আসন সংরক্ষন, সরকারি চাকরিতে ৫% বহাল ও নারীদের জন্য কর্মসংস্থান তৈরি করা, নারীদের উপর সহিংসতাকারীদের বিচার, সমতল আদিবাসীদের জন্য ভূমি কমিশন ও পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়ন সহ সংবিধানে আদিবাসীদের স্বীকৃতির সুপারিশ রয়েছে।

৪র্থ এই জাতীয় আদিবাসী নারী সন্মেলনের শেষদিনের প্রথম পর্বে আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অধ্যাপক ড.আইনুন নাহার, আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের সদস্য সুলেখা ম্রং, নেটওয়ার্কের সদস্য চন্দ্রা ত্রিপুরা, আদিবাসী নারী পরিষদের লিপি টুডু। দ্বিতীয় পর্বে কাপেং ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক পল্লব চাকমা, আদিবাসী ফোরামের তথ্য ও প্রচার সম্পাদক দীপায়ন খীসা, আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের আহ্বায়ক মিনু মারিয়া ম্রং প্রমূখ।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked with *

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক মন্তব্য